প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

218

গত কয়েকদিন ধরে বিভিন্ন অনলাইন দৈনিকে ‌’মিরসরাইয়ে জমিসক্রান্ত বিরোধে বৃদ্ধকে পিটিয়েছে ইউপি সদস্য’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়েছেন ইছাখালী ইউনিয়নের ৯নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য নিতাই চরণ দাশ ও তার পরিবার।

প্রকাশিত সংবাদে উল্লেখ করা হয়েছে গত ২ মে বিকেলে ইছাখালী ইউনিয়নের চরশরত গ্রামে নিতাই চরণ দাশ ও তার পরিবারের লোকজন মিলে একই এলাকার ছায়ারঞ্জন দাশ (৭০) ও তার ভাইয়ের জায়গা জোরপূর্বক দখল করতে আসে। এসময় ছায়ারঞ্জন দাশ বাঁধা দিতে গেলে তার উপর তেড়ে এসে লাঠি দিয়ে মাথায় আঘাৎ করে ইউপি সদস্য নিতাই চরণ দাশ ও বহিরাগতরা। যা সম্পন্ন মিথ্যাও বানোয়াট।তাকে সামাজিকভাবে হেয়প্রতিপন্ন করতে সাংবাদিকদের মিথ্যা তথ্য দিয়ে একটি চক্র এই সংবাদ করিয়েছে।

প্রকৃত ঘটনা হলো ছায়ারঞ্জন দাশ তাঁর ভাইয়েরা জোরপূর্বক সরকারী জায়গায় পানি নিস্কাশনের ড্রেন ভরাট করে রাস্তা করে। বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অবগত হয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং ওই ড্রেন উদ্ধারের নির্দেশ দেন। যখন এস্কেবেটর দ্বারা ড্রেন উদ্ধারের কাজ চলছে তখন ছায়ারঞ্জনসহ তাঁর পরিবারের লোকজন বাঁধা দেয়। তখন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি হিসেবে ইউপি সদস্য নিতাই চরণ দাশও উপস্থিত ছিলেন। এসময় এলাকার দুটি পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হলে নিতাই রঞ্জন তা নিবৃত করেন।পরে আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে চিকিৎসা করেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য নিতাই বলেন, চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে রাখায় স্থানীয়দের সাথে ওই মহিলার ঝগড়া হচ্ছিল। খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে দুই পক্ষকে থামিয়ে দিয়েছি। ওই মহিলাকে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে দেয়ার সময় কে বা কারা আমার ছবি তুলে। পরে সেগুলো ফেসবুকে দিয়েছে। ছবিতে আমাকে যেভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে, বাস্তবে ওই সময় এমন ঘটনা ঘটেনি। আমি এমন প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

নিবেদক
নিতাই চরণ দাশ
সদস্য, ৯ং ওয়ার্ড
৬ নং ইছাখালী ইউনিয়ন, জোরারগঞ্জ, মিরসরাই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here