মিরসরাইয়ের মঘাদিয়ায় ঝুঁকিপূর্ণ শ্রেণীকক্ষে শিশু শিক্ষার্থীদের পাঠদান

186

মিরসরাইয়ের মঘাদিয়ায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ঝুঁকিপূর্ণ শ্রেণীকক্ষে কোমলমতি শিশু শিক্ষার্থীদের পাঠদান চলছে। দিনের পর দিন চরম ঝুঁকি নিয়ে ক্লাস করছে ২শতাধিক শিশু শিক্ষার্থী। ভঙ্গুর ও বিপদজনক ভবনটি দ্রুত সংস্কার না করা গেলে যেকোন সময় ঘটতে পারে ভয়াবহ দূর্ঘটনা। তবে এ বিষয়ে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার কথা জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন। স্থানীয়রা জানায়, মঘাদিয়া ইউনিয়নের শেখটোলা গ্রামের উত্তর মঘাদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৩৮ সালে। বিদ্যালয়টিতে প্রায় ২শতাধিক শিশু শিক্ষার্থী পড়ালেখা করছে। বর্তমানে দ্বিতল এই ভবনের ছাদের বিম, দেয়াল ও মেঝেতে দেখা দিয়েছে ফাটল।

এ পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থী ও শিক্ষকেরা ভয় ও শঙ্কা নিয়ে বসছে শ্রেণিকক্ষে। ১৯৩৮ সালে টিন কাঠ আর বেড়া দিয়ে বিদ্যালয়টির যাত্রা শুরু হয়। পরবর্তীতে ১৯৯৭ সালে একতলা পাঁকা ভবন লাভ করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি। ২০১১ সালে শ্রেণীকক্ষ সংকট দুর করতে দ্বিতল ভবনে উন্নীত করা হয় একতলা ভবনটিকে। বর্তমানে ভঙ্গুর ও বিপদজনক শ্রেণিকক্ষে চলছে বিদ্যালয়ের কার্যক্রম। শ্রেণিকক্ষের ছাদে বাঁশের ঠেকনা দিয়ে চলছে পাঠদান। উদ্বিগ্ন অভিভাবকদের দাবি দ্রুত সংস্কারের মাধ্যমে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন জানান, মঘাদিয়ায় ঝুঁকিপূর্ণ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বিষয়টি অবগত হয়েছি। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসকে এব্যাপারে খোঁজ খবর নিতে বলা হয়েছে। অতি দ্রুতই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here