মিরসরাইয়ে কলেজ ছাত্রকে হত্যা চেষ্টা মামলার আসামীরা ধরাছোঁয়ার বাইরে

784


নিজস্ব প্রতিনিধি
মিরসরাইয়ে মেহেদুল আলম রাফি নামে এক কলেজ ছাত্রকে হত্যার চেষ্টা করে সন্ত্রাসীরা। তাকে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করা হয়েছে। সে দীর্ঘদিন ধরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এই ঘটনায় জোরারগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রায় ২০দিন অতিবাহিত হলেও এখনো কোন আসামী গ্রেপ্তার হয়নি বলে অভিযোগ করেন মামলার বাদি রাফির মা কোহিনুর বেগম। রাফি ওছমানপুর ইউনিয়নের পাতাকোট এলাকার মৃত নুরুল আমিনের ছেলে।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ৫ আগষ্ট রাত ৯টার সময় উপজেলার ওছমানপুর ইউনিয়নের আজমপুর বাজারের দক্ষিণ পাশে রাস্তা দিয়ে এশার নামাজ পড়ে বাড়ি ফিরছিলেন কলেজ ছাত্র রাফি। এসময় তার এক বন্ধুকে কিছু সন্ত্রাসী মারতে দেখে সে উদ্ধার করতে যায়। তখন সন্ত্রাসীরা রাফিকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। তার সাথে থাকা মোবাইল সেট ও নগট টাকা নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে তার মৃত্যু হয়েছে ভেবে রেখে পালিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে মূমর্ষ অবস্থায় প্রথমে মিরসরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয় যায়। সেখানে শারীরিক অবস্থার অবনতি দেখে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এখনো হাসপাতালের ১৯ নং ওয়ার্ডের ৫৫ নং বেডে সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এই ঘটনায় ১০ আগষ্ট রাফির মা কোহিনুর বেগম বাদি হয়ে ৮জনের নাম উল্লেখ করে জোরারগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলার আসামীরা হলো,আব্দুল্লাহ মিরান, মেজবাউল আলম সোহেল, আসিফ মাঈন উদ্দিন, আতিকুল করিম, ফরহাদ, একরামুল হক, নাজমুল হোসেন, মোঃ শাহদাত সহ অজ্ঞাত আরো ৪-৫জন।


কলেজ ছাত্র মেহেদুল আলম রাফির মা ও মামলার বাদি কোহিনুর বেগম অভিযোগ করেন, কোন কারণ ছাড়া সন্ত্রাসীরা আমার ছেলেকে হত্যা করতে চেয়েছে। আল্লাহ তার হায়াত রেখেছে বিধায় বেঁচে আছে। এখনো হাসপাতালের বেডে দিন কাটছে তার। এই ঘটনায় আমি মামলা দায়েরর করার প্রায় ২০দিন অতিবাহিত হলেও পুলিশ রহস্যজনক কারণে কোন আসামীকে গ্রেপ্তার করছেনা। অন্যথায় আসামীর পক্ষের লোকজন মামলা তুলে সমঝোতায় বসতে হুমকি দিচ্ছে। আমি প্রশাসনের কাছে আমার ছেলের উপর হামলাকারীদের দ্রæত গ্রেপ্তারের দাবী জানাচ্ছি।
এই বিষয়ে জোরারগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ জাহিদুল কবির বলেন, ওই মামলার একজন আসামীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তবে এজারে উল্লেখিত কত নম্বর আসামী সঠিক বলতে পারছিনা। অন্য আসামীদেও গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। আশা করছি খুব শীঘ্রই গ্রেপ্তার করতে পারবো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here