মিরসরাইয়ে পূর্বশুত্রতার জের ধরে রান্নাঘরে আগুন

243



মিরসরাই প্রতিনিধি
মিরসরাই উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের একটি বাড়িতে পূর্বশুত্রতার জের ধরে ঘরে আগুন লাগানোর অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) দিবাগত রাত ২টায় ইউনিয়নের পূর্বদুর্গাপুর গ্রামের ওহিদুন্নবী প্রকাশ বড় মিয়ার বাড়িতে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে।
অগ্নিকান্ডে ওহিদুন্নবীর ছোট ছেলে দুবাই প্রবাসী মো. মেজাবাউল আলমের ভিসা লাগানো পাসপোর্ট (নং-বিডবিøউ ০৯১৮৯১২) সহ নগদ ৯০ হাজার টাকা পুড়ে গেছে। এছাড়া রান্নাঘরের আসবাবপত্রসহ ৩ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবী করেন ক্ষতিগ্রস্থ ওহিদুন্নবী।

ওহিদুন্নবী জানান, বৃহস্পতিবার রাত ২টার সময় গরুর ঘরে হঠাৎ শব্দ শুনে ঘুম ভেঙ্গে যায়। পরবর্তীতে ঘর থেকে বের হয়ে দেখেন গরুর ঘরের পেছন থেকে আগুন লেগে রান্নাঘর পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়েছে। আগুনের লেলিহান শিখায় মহূর্ত্বের মধ্যে রান্নাঘর ও গরুর ঘর ভষ্মিভূত হয়ে যায়। এসময় এলাকাবাসীর সহায়তায় আগুন নিয়ন্ত্রণের ফলে বাড়ির অন্যান্য ঘরে আগুন লাগা বন্ধ করা সম্ভব হয়। পরবর্তীতে মিরসরাই ফায়ার সাভির্স ষ্টেশানের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

তিনি আরো বলেন, বিগত চার মাস পূর্বে বারইয়ারহাট পৌরসভার মেহেদীনগর এলাকার রবিউল হোসেনের কন্যা লিপি আক্তারের সাথে তার ছোট ছেলে মেজবাউল আলমের বিয়ে হয়। মেজবা চলতি মাসের শেষ দিকে ডুবাই চলে যাওয়ার কথা ছিলো। কিছুদিন পূর্বে মেজবা ব্যক্তিগত খরচের জন্য তার স্ত্রীর নিকট থাকা বিয়ের সময় দেওয়া স্বর্ণ বন্ধক রেখে কিছু টাকা নেওয়ার কথা বলেন স্ত্রীকে। এতে স্ত্রী লিপি আক্তার ঝগড়া করে ১২ জুন রাতে তার মা খতিজা বেগম ও ভাই আরিফ, রাজু এবং খালাতো ভাই তানভীর সাথে স্বামীর দেওয়া ৫ভরি স্বর্ণালঙ্কার, কাপড় নিয়ে বাবার বাড়ি চলে যায়। এসময় লিপি ও তার মা, ভাইয়েরা বলে যায় মেজবা কীভাবে বিদেশ যায় এবং তার মা বাবা কিভাবে বাড়িতে বসত করবে দেখে নিবে তারা। এরপর ১৩ তারিখ রাতে তারা এসে আমাদের হত্যার উদ্দেশ্যে বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দিয়ে যায়। আগুন লাগার সময় বাড়িতে বিদ্যুৎ ছিলো না। এছাড়া রান্নাঘরে গ্যাস সিলিন্ডারও নেই। সন্ধ্যার আগে রান্নাঘরের রান্নার কাজ শেষ হয়ে যায় আমাদের। আগুনে আমার রান্নাঘরের পাশাপাশি সেখানে আলমারিতে সংরক্ষিত আমার ছেলের ডুবাইয়ের ভিসা লাগানো পাসপোর্টও পুড়ে ছাই হয়ে যায়। অগ্নিকান্ডের ঘটনায় জোরারগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানান তিনি।

দুর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু সুফিয়ান বিপ্লব বলেন, আগুনে ক্ষতিগ্রস্থ ঘর আমি পরিদর্শন করেছি। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের অভিযোগের আলোকে আইনী সহায়তার জন্য জোরারগঞ্জ থানা পুলিশকে অবহিত করেছি।

মিরসরাই ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশনের ষ্টেশান কর্মকর্তা তানভীর আহম্মদ বলেন, অগ্নিকান্ডের খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে বিদ্যুতের শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে। তবে ক্ষতিগ্রস্তপরিবারের অভিযোগ তদন্ত করা হচ্ছে।

জোরারগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মোজাম্মেল হক বলেন, অগ্নিকান্ডের ঘটনায় থানায় এখনো কোনো অভিযোগ পায়নি। অভিযোগ ফেলে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here