মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে প্রথম শিল্প প্রতিষ্ঠানে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান

473

 

নিজস্ব প্রতিনিধি

মিরসরাইয়ের ইছাখালীতে দেশের সর্ববৃহৎ অর্থনৈতিক অঞ্চল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরে চলমান অবকাঠামোর উন্নয়ন কাজ দ্রুতই এগিয়ে চলছে।
বিনিয়োগ বৃদ্ধি এবং কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির দৃঢ় সংকল্পকে সামনে রেখে বর্তমান সরকার দেশে ১০০টির অধিক অর্থনৈতিক অঞ্চল তৈরিতে কাজ করে যাচ্ছে। তার মধ্যে বিনিয়োগের জন্য সবচেয়ে আকর্ষনীয় চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ের বঙ্গবন্ধু শিল্পনগর এলাকায় শুরু হয়েছে শিল্প কারখানায় বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদানের কাজ। বর্তমানে আবেদনকৃত বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সোমবার (৪মার্চ) ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগর’ এলাকায় প্রথম শিল্প প্রতিষ্ঠান হিসেবে Jinyuau Chemical Industry Ltd-কে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান করছে চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩। প্রতিষ্ঠানটি খুব দ্রুত তাদের উৎপাদন শুরু করার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

বর্তমানে অবকাঠামোগত বিভিন্ন কাজের জন্যে কর্তৃপক্ষের চাহিদা মোতাবেক বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান অব্যাহত রয়েছে। এরই মধ্যে একাধিক শিল্প প্রতিষ্ঠান তাদের উৎপাদন কাজে বিদ্যুৎ চাহিদা মোতাবেক চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ বরাবর আবেদন করেছে। চট্টগ্রাম পবিস-৩ আবেদনের সঙ্গে সঙ্গে লাইন নির্মাণ করে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানকে বিদ্যুৎ প্রদানে কাজ করে যাচ্ছে। এ পর্যন্ত প্রায় ২ মেগাওয়াট অবকাঠামো তৈরির কাজে অস্থায়ী ভিত্তিতে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান করা হয়েছে ওই অর্থনৈতিক অঞ্চলে।
জানা গেছে, মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলের নির্মাণ কাজ শুরু হওয়ার পর থেকে দেশি, বিদেশি বিভিন্ন শিল্পগ্রুপের কাছ থেকে বড় বড় বিনিয়োগের প্রস্তাব আসছে। এরমধ্যে চট্টগ্রামভিত্তিক শিল্পগ্রুপ পিএইচপি এখানে ইস্পাত, গ্লাসসহ বিভিন্ন খাতে ৩২ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগের প্রস্তাব দিয়েছে। এই জোনে ৫০০ একর জমি বরাদ্দ পেয়েছে বসুন্ধরা গ্রুপ। চীনের ঝেজিয়াং জিনদুন হোল্ডিং গ্রুপ ৪০ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করবে। চীনের আরেক প্রতিষ্ঠান কুনমিং স্টিল ১২ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করে স্টিল মিল করার প্রস্তাব দিয়েছে বেজা’র কাছে। চট্টগ্রামের কেএসআরএম গ্রুপ মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য এবং বস্ত্র, বিদ্যুৎ ও ইস্পাত শিল্পে বিনিয়োগের প্রস্তাব দিয়েছে। এই গ্রুপ এখানে ৬ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করতে আগ্রহী।
এখানে বিনিয়োগের প্রস্তাব দিয়েছে- সামিট চিটাগং পাওয়ার ১ হাজার ৭৬০ কোটির, সিরাজ সাইকেল ইন্ডাস্ট্রি ২০০ কোটির, বিপিডিবি আরপিসিএল পাওয়ার জেনারেশন ১ হাজার কোটি টাকার, আরব-বাংলাদেশ ফুড ১০০ কোটি টাকার, গ্যাস-১ লিমিটেড ২০০ কোটির, ফন ইন্টারন্যাশনাল ২০০ কোটি টাকার, ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল সাড়ে ৫০০ কোটি টাকার, আরমান হক ডেনিমস ১০০ কোটির এবং অর্কিড এনার্জি ২০০ কোটি টাকার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here