উইন্ডিজ বধের পর বাংলাদেশের সেমিফাইনাল কতদূর?

274

বিশ্বকাপে নিজেদের ৫ম ম্যাচে এসে আবারো জয়ের ধারায় ফিরেছে বাংলাদেশ দল। টনটনে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৭ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ। এতে করে ৫ পয়েন্ট নিয়ে এককভাবে টেবিলের পাঁচ নাম্বারে এখন স্টিভ রোডসের শিষ্যরা। এই জয়ের সাথে টিকে থাকলো বাংলাদেশের সেমিফাইনালের আশাও।

পয়েন্ট টেবিলে সবার উপরে অস্ট্রেলিয়া, তারপর নিউজিল্যান্ড, ভারত এবং ইংল্যান্ড সেমির দৌড়ে এগিয়ে। তবে অনেকটাই আশা শেষ হয়ে গেছে ক্যারিবিয়দের। বাংলাদেশের বাকি আর চারটি ম্যাচ।

আগামী ২০শে জুন টাইগারদের প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া। পরের ম্যাচ আগামী ২৪শে জুন লড়তে হবে র‍্যাংকিংয়ের নিচের সারির দল আফগানিস্তানের সাথে। এরপর আগামী ২ জুলাই প্রতিপক্ষ ভারত। আর গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচ ৫ই জুলাই লর্ডসে পাকিস্তানের বিপক্ষে।

বাংলাদেশ যদি এ ৪ ম্যাচের সবগুলো জিতে তাহলে আর কোনো সমীকরণেরই দরকার হবে না। সোজা চলে যাবে সেমিফাইনালে। এমনকি ৩ ম্যাচ জিতলেও পয়েন্ট হবে ১১। সেক্ষেত্রেও সেমিফাইনালের পথ খুলে যাবে বাংলাদেশের সামনে।

কারণ তাহলে নিচের কোনো দলেরই আর বাংলাদেশকে টপকানোর সুযোগ থাকবে না। আর উপরের সারির চার দল যেহেতু নিজেদের মধ্যে ম্যাচ খেলবে তাই তারা কেউ পয়েন্ট হারালেই উপরে উঠে আসবে মাশরাফি-সাকিবরা।

তবে বাংলাদেশ যদি বাকি ৪ ম্যাচের দুটিতে হেরে যায় তাহলে শেষ হয়ে যেতে পারে সেমির সম্ভাবনা। আর সব সমীকরণে পানি ঢেলে দিতে পারে বৃষ্টি। কারণ পয়েন্ট ভাগাভাগি হলেই ওলট-পালট হয়ে যাবে টেবিলের সমীকরণ।

তাই প্রতিটি ম্যাচেই এখন থেকে জয়ের লক্ষ্য নিয়ে মাঠে নামতে হবে বাংলাদেশকে। কারণ দুটো দলের যদি পয়েন্ট সমান হয় তাহলে সবার আগে দেখা হবে কে কয়টি ম্যাচ জিতেছে। জয়ের সংখ্যার হিসেবে নির্ধারণ হবে সেমিফাইনাল স্পট।

যদি সেটাও সমান-সমান হয় তাহলে আসবে নেট রানরেট। এদিক থেকে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে মাত্র ৪১.৩ ওভারেই ৩২১ রান তাড়া করে জয় অনেকটাই এগিয়ে দিয়েছে মাশরাফিদের।

বাংলাদেশ টনটন থেকে পরের ম্যাচের জন্য মঙ্গলবার রওয়ানা হবে নটিংহ্যামে। সূত্র : বিবিসি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here