ফুটবল বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে বাংলাদেশ

316

ডেস্ক রিপোর্ট

সব টেনশনের অবসান। নিজ মাঠে দেশবাসীকে হতাশ করেনি বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। ২০২২ কাতার বিশ্বকাপ এবং ২০২৩ এশিয়ান কাপের প্রাক বাছাইয়ের হোম ম্যাচে মঙ্গলবার লাওসের সাথে গোল শূন্য ড্র করে জেমি ডে বাহিনী।

ফলে ৬ জুন ভিয়েনতিয়েনের মাঠে ১-০ তে জয়ের সুবাদে দুই লেগ মিলে ১-০ অ্যাগ্রিগেট নিয়ে বাছাই পর্বে কোয়ালিফাই করলো বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে লাল সবুজরা জিততে পারেনি গোল মিসের কারণে। ফলে স্টেডিয়ামে উপস্থিত হাজার পাঁচেক দর্শক জয়োৎসব করতে না পারার কষ্ট নিয়ে মাঠ ছেড়েছে। এরপরও তারা খুশী বাংলাদেশ কোয়লিফাই করায়। সেপ্টেম্বরে শুরু বিশ্বকাপ বাছাই পর্ব।

একাদশে দুটি পরিবর্তন এনে মঙ্গলবার দলকে মাঠে নামান কোচ জেমি ডে। আরিফুলের বদলে আগের ম্যাচে গোল করা রবিউল এবং মতিন মিয়ার জায়গায় অভিজ্ঞ মামুনুল। কিন্তু ৬ জুন অ্যাওয়ে ম্যাচের মতো এই হোম ম্যাচেও প্রথম থেকে নার্ভাস বাংলাদেশ দল। সাথে গোলরক্ষক রানান ভুল সুবিধা করে দিচ্ছিল লাওসকে। জামাল ভূইয়াদের তাড়াহুড়া স্বভাবও সমস্যা বাড়াচ্ছিল। যদিও প্রথমার্ধে গোলের সুযোগ যা পায় স্বাগতিকরাই। স্ট্রাইকার নাবিব নেওয়াজ জীবন ২৫, ২৯ ও ৩৮ মিনিটে সহজ সুযোগ হাতছাড়া করায় প্রথম ৪৫ মিনিট শেষ হয় গোল শূন্যতে।

জীবনের প্রথম শট লাওসের কিপার কোনো মতে পা দিয়ে ঠেকান। ৩৮ মিনিটে মামুনুলের থেকে বল পেয়ে বিপক্ষ কিপারকে একা পেয়ে যান জীবন। কিন্তু আগুয়ান কিপারের মাথার উপর দিয়ে বল মারতে গিয়ে জীবনের ভলি চলে যায় বার ঘেঁষে বাইরে। এছাড়া রবিউলের কর্নার থেকে জামালের হেড হয় লক্ষভ্রষ্ট। ৫৩ মিনিটে আবার গোলের সুযোগ হাতছাড়া জীবনের। বিপলুর বদলে মাঠে নামা ইব্রাহিমের ক্রসে ছোট বক্সের উপর ফাঁকায় বল পান ঢাকা আবাহনীর এই ফরোয়ার্ড।

অথচ সুবর্ণ এই সুযোগ তিনি নষ্ট করেন দুর্বল হেডে বল লাওসের গোলরক্ষকের হাতে বল তুলে দিয়ে। বিল্ড আপ অ্যাটাক আর প্রেসিং ফুটবলে চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছিল লাওস। ৫৫ মিনিটে লাওসের ক্যাপ্টেন সুক আপনির শট দক্ষতার সাথে ঠেকান গোলরক্ষক রানা। ৭৮ ও ৮৮ মিনিটে সুফিল ও ইব্রাহিম পারেননি গোল করতে। ফলে শেষ মিনিট পর্যন্ত টেনশনে থাকা। এই ম্যাচে জয় দরকার ছিল লাওসের। ১-০ জিতলে খেলা গড়াতো অতিরিক্ত সময়ে। ২-০ তে বা ২-১ এ জিতলে কোয়ালিফাই করতো আসিয়ান অঞ্চলের দেশটি।

বাংলাদেশ দল: রানা, বাদশা, ইয়াসিন, বিশ্বনাথ, রহমত, মামুনুল, জনি ( সুফিল ৬৮ মি.), বিপলু ( ইব্রাহিম ৪৫ মি.), জামাল, জীবন, রবিউল ( সোহেল রানা ৮১ মি.)।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here