বারইয়ারহাট পৌরসভা আওয়ামীলীগের সভাপতি পদে লড়ছেন খোকন

434

মিরসরাই প্রতিনিধি
আগামী ২৮ অক্টোবর বারইয়ারহাট পৌরসভা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনকে ঘিরে মহাব্যস্ত সময় পার করছেন প্রার্থীরা। অনেকটা নাওয়া-খাওয়া ছেড়ে দিয়ে কাউন্সিলরদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন নেতারা। প্রার্থীরা কঠিন হিসেব কষছেন কার পক্ষে কতজন ভোটার রয়েছে। যে যার পাল্লা ভারি করার চেষ্টা করছেন। নিজের পছন্দের প্রার্থীকে জয়ী করতে কাউন্সিলরদের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে প্রচার-প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন কর্মী সমর্থকরা। সভাপতি প্রার্থীদের মধ্যে অন্যতম মিরসরাই উপজেলায় আওয়ামী রাজনীতির সর্বজন পরিচিত মুখ পৌর আওয়ামীলীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম খোকন। ছাত্র জীবনে রাজনীতির হাতেখড়ি হওয়া এই নেতা দলের দূর্দিনে অগ্রভাগে থেকে মাঠে নেতৃত্ব দিয়েছেন।


রেজাউল করিম খোকন বারইয়ারহাট পৌরসভার জামালপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। পিতা মৃত ছালেহ আহম্মদ প্রকাশ ছদিক কোম্পানী।
জানা গেছে, ১৯৯০ সালে বারইয়ারহাট কলেজে ছাত্রলীগের রাজনীতি শুরু করেন। ১৯৯১ সালে কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ১৯৯৩ সালে সভাপতি নির্বাচিত হন। এরপর মিরসরাই উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ছাত্রজীবন শেষ হওয়ার মাধ্যমে ছাত্র রাজনীতির ইতি টেনে সরাসরি মুল দল আওয়ামীলীগের দায়িত্ব পান। প্রথমে ২ নং হিঙ্গুলী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সদস্য ও ১৯৯৮ সালে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন। পরিবর্তিতে পৌরসভা গঠনের পর ২০০৩ সালে পৌর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হন। ২০১১ সালে মেয়র পদপ্রার্থী হয়েছিলেন। তখন দলীয় সমর্থন আদায়ে সাবেক মেয়র তাহের ভ‚ঁইয়ার কাছে ৫ ভোটে পরাজিত হয়ে দলীয় সীদ্ধান্ত মেনে নেন। পরে পৌরসভা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়ে অধ্যবদি দায়িত্ব পালন করছেন। রাজনৈতিক জীবনে অনেক হামলা মামলার শিকার হয়েছেন। রাজনৈতিক প্রতিহিংসার বলি হয়ে তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা হয়। ২০০২ সালে বিএনপির হামলার শিকার হয়েছেন। রাজনীতি ছাড়াও বিভিন্ন শিক্ষা, সামাজিক, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের সাথে জড়িত রয়েছেন তিনি। ২০১২ সাল থেকে অদ্যবধি বারইয়ারহাট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। বিদ্যালয়ের অবকাঠামোগত উন্নয়নের পাশাপাশি শিক্ষার মানন্নোয়নে তিনি নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। ২০০১ সাল থেকে অদ্যবধি বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদের উপদেষ্টার দায়িত্ব পালন করছেন।


রেজাউল করিম খোকন বলেন, বারইয়ারহাট এক সময় বিএনপির দুর্গ ছিলো। এখন আওয়ামীলীগের দুর্গ গড়ে তুলেছি। তৃণমূলের কর্মীদের সাথে নিয়ে ১৯৯৬ সালে তত্ত¡াবধায়ক সরকারের দাবীতে আন্দোলন করেছি। ২০১৩-২০১৪ সালে বিএনপি জামায়াতের জ্বালাও পোড়াও কর্মকান্ড শক্তহাতে প্রতিহত করেছি। নেতা-কর্মীদের জন্য নিজেকে উজাড় করে দিয়েছি। শত জেল জুলুম নির্যাতনের পরেও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ থেকে বিচ্যুতি হইনি। ছাত্রজীবন থেকে প্রিয় নেতা সাবেক সফল মন্ত্রী ৭বারের নির্বাচিত এমপি ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ এমপির নির্দেশে কাজ করে যাচ্ছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানে একজন ক্ষুদ্র কর্মী হিসাবে কাজ করতে চাই। তাই আগামী ২৮ অক্টোবর বারইয়ারহাট পৌরসভা আওয়ামীলীগের কাউন্সিলে সভাপতি পদে প্রার্থী হয়েছি। এজন্য সকল কাউন্সিলরদের সমর্থন ও দোয়া প্রার্থনা করছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here